কুঁচিয়া ও কুঁচিয়া রপ্তানি সম্পর্কে জানতে চাই

  1. Anonymous September 12, 2015
    I want to know about cuchia
  2. Anonymous December 9, 2015
    চাস?

*

1 answer

সাপের মতো দেখতে হলেও কুঁচিয়া এক প্রকার মাছ। ইহা বাংলাদেশে কুইচ্চা, কুঁইচা, কুঁচে, কুঁচো ইত্যাদি নামে পরিচিত। বাংলাদেশের হাওর, বাঁওড়, খাল-বিল, পচা পুকুর, ধানক্ষেতে এবং বন্যাপ্লাবিত অঞ্চলে কুঁচিয়া মাছ দেখতে পাওয়া যায়। কুঁচিয়া মাছের শরীর লম্বা বেলনাকৃতির। আপাতদৃষ্টিতে কুঁচিয়া মাছকে আঁশবিহীন মনে হলেও প্রকৃতপক্ষে ইহার গায়ে ক্ষুদ্রাকৃতির আঁশ বিদ্যমান যার বেশিরভাগ অংশই চামড়ার নিচে সজ্জিত থাকে।
 
খাদ্য হিসেবে কিছু কিছু উপজাতীয় জনগোষ্ঠীর কাছে জনপ্রিয় হলেও বাংলাদেশের অধিকাংশ মানুষ কুঁচিয়া মাছকে অস্পৃর্শ মনে করে। যদিও ইহা শারীরিক দুর্বলতা, রক্তশূন্যতা, অ্যাজমা রোগ, ডায়াবেটিস, বাতজ্বর, পাইলসসহ অনেক রোগ সারাতে মহৌষধের মতো কাজ করে। তাছাড়া পরিবেশের খাদ্য জালে কুঁচিয়ার অনন্য অবদান রয়েছে। ধান ক্ষেতের ফসল অনিষ্টকারী পোকার লার্ভা, শামুক, কৃমি ইত্যাদি খেয়ে কুঁচিয়া কৃষকের উপকারী বন্ধু হিসেবে কাজ করে। অনেক পচা-গলা জৈবপদার্থ খেয়ে পরিবেশে মানবসমাজের বিশেষ বন্ধু হিসেবে ভূমিকা রাখে।
 
বাংলাদেশের মানুষ যতই অপছন্দ করুক না কেন বিদেশে এ মাছের যথেষ্ট চাহিদা রয়েছে। রফতানি উন্নয়ন ব্যুরোর তথ্য মতে, শুধুমাত্র ২০১৩-১৪ সালে জীবিত মাছ হিসেবে ৭,০১৭৫ টন কুঁচিয়া বিদেশে রফতানি করে বাংলাদেশ প্রায় ১.৫ কোটি ডলার বৈদেশিক মুদ্রা আয় করেছে।
 
বাংলাদেশের কোথাও কুঁচিয়া চাষ করা হয় না। সুতরাং স্বাভাবিকভাবেই প্রতীয়মান হয় যে, বাংলাদেশে কোনোরূপ চাষ ছাড়াই প্রকৃতি থেকে বিপুল পরিমাণে কুঁচিয়া আহরণ করে প্রতি বছর বিদেশে রফতানি করা হচ্ছে। তাই একদিকে পরিবেশ রক্ষায় কুঁচিয়া প্রকৃতি থেকে আহরণ নিষিদ্ধ করা যেমন জরুরি, অন্যদিকে কুঁচিয়া রফতানি করে মূল্যবান বৈদেশিক মুদ্রা অর্জনের হাতছানি। রফতানি উন্নয়ন ব্যুরোর বিগত বছরগুলোর উপাত্ত বিশ্লেষণ করলে দেখা যায়, অর্থের লোভ পরিবেশের প্রয়োজনকে ছাপিয়ে দিন দিন কুঁচিয়া রফতানির পরিমাণ বেড়েই চলছে। প্রকৃতির ভারসাম্য ঠিক রেখে অধিক বৈদেশিক মুদ্রা অর্জনের লক্ষ্যে এখনই বাণিজ্যিক ভিত্তিতে কুঁচিয়া চাষের প্রচলন করা খুবই জরুরি।
 
কুঁচিয়া খানিকটা রাক্ষুসে স্বভাবের মাছ। ইহা মাটিতে গর্ত করে বাস করতে অভ্যস্ত বিধায় কুঁচিয়া মাছ সহজেই জমির আইল, পুকুরের পাড়, বেড়িবাঁধ ইত্যাদি ক্ষতিগ্রস্ত করতে পারে। সুতরাং, কুঁচিয়ার নানাবিধ উপদ্রপের মোকাবিলা করে এর উৎপাদন বৃদ্ধি করার সবচেয়ে সহজ ও উপযোগী পদ্ধতি হলো হাপায় কুঁচিয়া চাষ করা।
 
 
তথ্যসূত্র:

#1
  1. Anonymous July 14, 2016
    কি ভাবে কুইচ্চা চাষ করবো
  2. Anonymous October 27, 2016
    I can do it ell fish

Please login or Register to Submit Answer

Latest Q&A

Like our FaceBook Page to get updates



Are you satisfied to visit this site? If YES, Please SHARE with your friends

To get new Q&A alert in your inbox, please subscribe your email here

Enter your email address:

Delivered by FeedBurner