পাবদা মাছের প্রজনন ও পোনা উৎপাদন কৌশল সম্পর্কে জানতে আগ্রহী

1 answer

পাবদা মাছের প্রণোদিত প্রজনন ও পোনা উৎপাদন কৌশল

  • ব্রুড প্রতিপালনঃ পাবদা মাছের প্রজননকাল জুন-জুলাই মাস। উন্নতমানের পোনা উৎপাদনের জন্য প্রজনন ঋতুর ৩-৪ মাস আগে থেকেই প্রাকৃতিক উৎস থেকে ব্রুড মাছ সংগ্রহ করে শতাংশ প্রতি ৬০-৮০টি মজুদ করা যেতে পারে। খাবার হিসাবে এসময় ৩০% আমিষ সমৃদ্ধ সম্পুরক খাবার মাছের দেহ ওজনের ৩-৫% হারে দৈনিক ২-৩ বারে পুকুরে প্রয়োগ করতে হবে। পুকুরে প্রাকৃতিক উৎপাদনশীলতা বৃদ্ধির জন্য প্রতি সপ্তাহে শতাংশ প্রতি ৪-৫ কেজি গোবর এবং ইউরিয়া ও টিএসপি সার ১০০ গ্রাম হারে প্রয়োগ করতে হবে। পুকুরে নিয়মিতভাবে জাল টেনে মাছের স্বাস্থ্য পরীক্ষা করতে হবে।
  • প্রণোদিত প্রজননের জন্য হরমোন প্রয়োগের ৬-১০ ঘন্টা পূর্বে ব্রুড মাছ পুকুর থেকে সংগ্রহ করে সতর্কতার সাথে হ্যাচারিতে সিমেন্ট সির্স্টানে রেখে পানির ফোয়ারা দিতে হবে।
  • পাবদা মাছের প্রণোদিত প্রজননের ক্ষেত্রে হরমোনের মাত্রা – ১ম ডোজ: স্ত্রী: ৩-৪ মিলিগ্রাম পিজি/কেজি ও পুরুষ: ৪-৬ মিলিগ্রাম পিজি/কেজি এবং ২য় ডোজ (৬ ঘন্টা পর): স্ত্রী: ১২-১৬ মিলিগ্রাম পিজি/কেজি ও পুরুষ: ৬-৮ মিলিগ্রাম পিজি/কেজি
  • হরমোন প্রয়োগের পর স্ত্রী-পুরুষ ১:১ অনুপাতে হাপা/সিস্টার্ণে রেখে পানির কৃত্রিম প্রবাহ সৃষ্টি করা হয় যাতে মাছ প্রজননের জন্য প্রণোদিত হয়।
  • হরমোন প্রয়োগের ৮-১০ ঘন্টা পর ডিম দিয়ে থাকে।
  • ডিম দেয়ার পর ব্রুড মাছগুলোকে সর্তকর্তার সথে হাপা/সিস্টার্ণ থেকে তুলে ১ পিপিএম পটাশিয়াম পার ম্যাঙ্গানেট দ্রবণে গোছল করিয়ে পুকুরে ছেড়ে দিতে হবে।
  • তাপমাত্রার উপর ভিত্তি করে ১৮-২২ ঘন্টা পর ডিম ফুটে রেণ পোনা বের হয় এবং কুসুম থলি নিঃশেষিত হওয়া পর্যন্ত হাপা/সিস্টার্ণে রাখতে হয়।
  • কুসুমথলি নিঃশেষিত হওয়ার পর রেণুকে সিস্টার্ণে স্থানান্তর করে প্রথম ১-২ দিন ডিমের কুসুম দিতে হবে এবং পরবর্তী ৮-১০ দিন খাদ্য হিসাবে জুপ্ল্যাঙ্কটন/আর্টিমিয়া নপ্লি সরবরাহ করতে হয়।

 
পোনা প্রতিপালন

  • পাবদা নার্সারি পুকুরের আয়তন ৫-১০ শতাংশ ও গভীরতা ১ মিটার হলে ভাল হয়।
  • পুকুর প্রস্তুতির সময় প্রাকৃতিক খাবার (বিশেষতঃ জুপ্ল্যাঙ্কটন) উৎপাদনের জন্য শতাংশ প্রতি ২০ কেজি হারে গোবর প্রয়োগ করতে হয়।
  • যথাযথভাবে নার্সারি প্রস্ত্তত করার পর প্রতি শতাংশে ৮-১০ দিন বয়সের ৩,০০০-৪,০০০ টি পাবদা/গুলশা মাছের পোনা মজুদ করা যায়।
  • পোনা ছাড়ার পর পোনার মোট ওজনের ১২-১৫% হারে সম্পুরক খাবার (৪০% চালের কুড়া, ৩০% সরিষার খৈল ও ৩০% ফিশমিল এর মিশ্রণ) অথবা বাণিজ্যিক নার্সারি খাবার প্রদান করতে হবে।
  • বরাদ্দকৃত খাবার দিনে ২-৩ বারে পুকুরে প্রয়োগ করতে হবে।
  • নার্সারি পুকুরে প্রতিপালনে পোনার ওজন ২.০-২.৫ গ্রাম হলে তা চাষ পুকুরে ছাড়তে হবে।

 
তথ্যসূত্র: DoF, Bangladesh

#1

Please login or Register to Submit Answer

Latest Q&A

Like our FaceBook Page to get updates



Are you satisfied to visit this site? If YES, Please SHARE with your friends

To get new Q&A alert in your inbox, please subscribe your email here

Enter your email address:

Delivered by FeedBurner