মাছে ফরমালিনের উপস্থিতি পরীক্ষণের পদ্ধতি সস্পর্কে জানতে চাই

1 answer

মাছে ফরমালিন এর উপস্থিতি নির্ধারণের পরীক্ষণ পদ্ধতিঃ টাইট্রেশন পদ্ধতি (ফরমালিন টেষ্ট কিট ব্যবহারের মাধ্যমে)
প্রয়োজনীয় যন্ত্রপাতি ও পাত্রসমূহ –

  • ফরমালিন টেষ্ট কিট
  • ট্রে বা বালতি
  • কাঁচের জার/বিকার – ৫০০ মি. লি.
  • মাপচোঙ/মিজারিং সিলিন্ডার – ১০/৫০ মি. লি.
  • পিপেট – ০১ মি.লি. ও পিপেট ফিলার
  • ওয়াশ বোতল
  • ডিসটিল্ড ওয়াটার – ২০ মি.লি.

পরীক্ষণ পদ্ধতিঃ
নমুনা সংগ্রহঃ

  •  নমুনা মাছটিকে ট্রে বা বালতিতে নিয়ে ওয়াশ বোতল দ্বারা মাছের সারা গায়ে ডিসটিল্ড ওয়াটার দিয়ে আস্তে স্প্রে করতে হবে,
  • ট্রে বা বালতিতে মাছের শরীর ধোয়া পানি নমুনা (৫ মি:লি:) হিসাবে পরীক্ষণের জন্য সংগ্রহ করতে হবে।

পরীক্ষণ পদ্ধতিঃ

  • মাপচোঙ/মিজারিং সিলিন্ডার দ্বারা ৫ মি.লি. নমুনা (মাছ ধোয়া পানি) একটি কাচের পাত্রে/টেষ্ট টিউবে নিতে হবে,
  • টেস্ট কিট এর ১ নং বোতল (রিএজেন্ট -১) থেকে ১ মি.লি. দ্রবণ ৫ মি.লি. মাছ ধোয়া পানির সাথে মিশাতে হবে,
  • টেস্ট কিট এর ২ নং বোতল (রিএজেন্ট -২) থেকে ১ মি.লি. দ্রবণ রিএজেন্ট-১ মিশ্রিত মাছ ধোয়া পানির সাথে অনুরূপভাবে মিশাতে হবে,
  • উক্ত মিশ্রণ ভালভাবে ঝাঁকাতে হবে। কয়েক সেকেন্ডের মধ্যে মিশ্রণ হালকা সবুজ রং ধারণ করবে;
  • টেষ্ট কিট এর ৩ নং বোতল (রিএজেন্ট -৩) থেকে ১ মি.লি. দ্রবণ উক্ত মিশ্রণের সাথে মিশাতে হবে এবং সাবধানতার সাথে ঝাঁকাতে হবে; এবার ২/৩ মিনিট অপেক্ষা করতে হবে।
  • যদি মিশ্রিত দ্রবন হালকা সবুজ রং থেকে গোলাপী বা লাল রং এ পরিবর্তন হয়, তাহলে বুঝতে হবে যে, উক্ত মাছে ফরমালিনের উপস্থিতি রয়েছে;
  • যদি রং অপরিবর্তিত থাকে বা রংহীন হয়ে যায়, তাহলে বুঝতে হবে যে, উক্ত মাছে ফরমালিন অনুপস্থিত।

ফরমালিন পরীক্ষণের ক্রম প্রবাহঃ

পদ্ধতিগতভাবে ৫ মি.লি. নমুনা সংগ্রহ করতে হবে
V
সাবধানে টেস্ট কিট এর রিএজেন্ট -১, ২ ও ৩ পর্যায়ক্রমে নমুনার সংগে মিশাতে হবে (প্রতিটি ১মি.লি. করে)
V
মিশ্রণকে ভালভাবে ঝাঁকাতে হবে
V
এবার ২/৩ মিনিট অপেক্ষা করতে হবে
V
গোলাপী/লাল রং রং অপরিবর্তনীয় বা রংহীন
V V
ফরমালিন উপস্থিত ফরমালিন অনুপস্থিত

 

পরিশেষে বলা যায় যে, মাছে ফরমালিন মেশানো একধরনের প্রতারণা এবং শাস্তিযোগ্য অপরাধ। এ থেকে রক্ষা পেতে হলে সচেতনতা বৃদ্ধি প্রয়োজন। তাই ফরমালিনমুক্ত মাছ পেতে হলে নিজে সচেতন হতে হবে এবং অপরকে সচেতন করতে হবে।
মাছে ফরমালিন এর উপস্থিতি নির্ধারণের পরীক্ষণ পদ্ধতিঃ ডিজিটাল (সেন্সর) পদ্ধতি
(ফরমালডিহাইড মিটার ব্যবহারের মাধ্যমে)

মাছে ফরমালিনের উপস্থিতি নির্ধারণের জন্য ফরমালডিহাইড মিটার একটি অত্যাধুনিক ডিজিটাল যন্ত্র, যা সেন্সর পদ্ধতিতে কাজ করে (electrochemical sensor type, measuring range 0-30 ppm, maximum overload 34 ppm, electrochemical sensor type, resolution-0.01 ppm, 2 years’ sensor life, response time is less than 60 seconds, operating temparature is -20 C0 to + 40 C0 , relative humidity range is 15-90% etc)

 

তথ্যসূত্র: DoF

#1

Please login or Register to Submit Answer

Latest Q&A

To get new Q&A alert in your inbox, please subscribe your email here

Enter your email address:

Delivered by FeedBurner

Like our FaceBook Page to get updates

Are you satisfied with this site?

If YES, Please SHARE with your friends

If NO, You may send your feedback from Here

OR, Do you have any fisheries relevant question? Please Ask Here